পিরোজপুরে প্রধান শিক্ষকসহ তিনজনকে নোটিশ

পিরোজপুর প্রতিনিধি:

পিরোজপুরের ইন্দুরকানী উপজেলায় অবৈধভাবে মধ্য চরণী পত্তাশী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবনে সহকারী শিক্ষিকা রুমি আক্তারকে থাকতে দেওয়ায় বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি, প্রধান শিক্ষক এবং ওই বিদ্যালয়ে বসবাসকারী সহকারী শিক্ষিকাকে কারণদর্শানো নোটিশ দিয়েছেন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা। ২৬ বছর বয়সী ওই শিক্ষিকা গত চার মাস ধরে আবাসিকভাবে বিদ্যালয় ভবনটির চার তলায় বসবাস করছেন।
কারণদর্শানো নোটিশ প্রাপ্তরা হলেন, উপজেলার মধ্য চরণী পত্তাশী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন কাজী, প্রধান শিক্ষক মোঃ মোতালেব কাজী এবং সহকারী শিক্ষিকা রুমি আক্তার।
বিদ্যালয় থেকে রুমি’র বাড়ির দূরত্ব মাত্র তিন কিলোমিটার হলেও, গত মার্চ মাস থেকে চার বছর বয়সী শিশু সন্তানকে নিয়ে সাইক্লোন সেল্টার সংযুক্ত ওই বিদ্যালয় ভবনে থাকছেন রুমি। করোনা ভাইরাসের সংক্রমন শুরু হওয়ার পর বিদ্যালয় বন্ধ থাকলেও তিনি সেখানেই অবস্থান করছিলেন।
গত বুধবার গভীর রাতে স্থানীয় কয়েক বখাটে নকল চাবি দিয়ে মূল গেটের চাবি দিয়ে তালা খুলে বিদ্যালয় ভবনে প্রবেশ করে। এরপর তারা রুমির কক্ষে ঢোকার চেষ্টা করে। এ সময় তার ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে পালিয়ে যায় বখাটেরা। বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর নজরে আসে উপজেলা শিক্ষা অফিসের কর্মকর্তাদের।
এরপরই বৃহস্পতিবার (২৩ জুলাই) বিকেলে প্রধান শিক্ষকসহ তিনজনকে কারণদর্শানো নোটিশ দেন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ শহিদুল ইসলাম। তাদেরকে আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছে।